স্মৃতির পালে হাওয়া || ভোলানাথ দাস



এলোমেলো সব ভাবনাগুলো
স্মৃতির পাতায় ভাসে;
ছেলেবেলায় মায়ের আদর
বাবার স্নেহাকাশে।
 
বড়দির সেই কোলে করে
স্কুলে নিয়ে যাওয়া;
অনাবিল সুখ দেয় আমার মনে
প্রবল উত্তরে হাওয়া।
 
বড়দির বিয়ে আবছা মনে পড়ে
খুব ছোট্ট আমি;
মেজদি-ছোড়দির প্রবল স্নেহাশীষ
জানেন অন্তর্যামী।
 
এলোমেলো সব স্মৃতির ভাবনা
স্বপ্নাকাশে আসে;
নীল আকাশ শুভ্র মেঘ
শুধুই যেন ভাসে।
 
বন্ধু হয়তো আমার জীবনে
আসেনি খুব একটা;
এসব কথা ভাবতে ভাবতে
যন্ত্রণা করে প্রাণটা।
 
এই পৃথিবীর পান্থ-শালায়
আমিও অনেকের মতো;
সময় যত এগিয়ে চলেছে
ভাবনা কত-শত।
 
হারিয়ে যাওয়া স্মৃতিগুলো
একটু করে জাগে;
সঙ্গীতের তালে মনের কোঠায়
রাগে-অনুরাগে।
 
ছেলেবেলার স্মৃতিগুলো
ভালালাগা-ভালোবাসার;
তারই সূত্র ধরে চলে
আগামী ইতিহাস আসার।

উজান গাঙে মাঝি চলেছে
মুখে ভাটিয়ালী সুর;
সুরের যাদুতে মন হারিয়ে যায়
দূর-বহুদূর।
 
মনের আঙিনায় স্মৃতির গল্প
চৌকাঠ পেরতে রাজি;
স্মৃতির পালে লাগল হাওয়া
রাখলাম আমি বাজি।
 
বিদ্যালয়ের স্মৃতিগুলো
মধুর ছোঁয়াময়;
সহপাঠীরা বর্তমান দুনিয়ায়
দারুণ পেয়েছে ভয়।
 
শিক্ষার আয়নায় সমাজকে চিনেছি
বাড়িয়েছি মনের বল;
গঙ্গা থেকে বয়ে চলে গেছে
অনেক ‘কিউসেক জল’।

Post a comment

0 Comments